আইনে অসামঞ্জস্য দূর করার অনুরোধ

জাতীয় সংসদের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি–বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটি তাদের প্রতিশ্রুত চূড়ান্ত বৈঠক না করেই সংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের সুপারিশ একতরফাভাবে উপস্থাপন করেছে। ফলে, এই সুপারিশে সাংবাদিক সমাজের মতামত যথাযথভাবে প্রতিফলিত হয়নি ।

সংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাস করার আগে স্থায়ী কমিটিতে আলোচনায় অংশগ্রহণকারী গণমাধ্যমের প্রতিনিধি সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাহ্‌ফুজ আনাম, অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্সের (এটকো) সহসভাপতি মোজাম্মেল বাবু এবং বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল যৌথ বিবৃতিতে এ কথা বলেন। তাঁরা এই ঘটনায় উদ্বেগও প্রকাশ করেছেন।

মনজুরুল আহসান বুলবুলের পাঠানো বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা মনে করি, এই আইন কার্যকর করার ক্ষেত্রে বিধিমালা প্রণয়নের বেলায় আলোচনা করে উল্লিখিত সকল অসামঞ্জস্য দূর করে আইনটি সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য করার সুযোগ রয়েছে।’

বিবৃতিতে এই তিন সাংবাদিক বলছেন, সুপারিশে তাঁদের মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে কিছু কিছু বিষয় এই আইনে সংযোজন করা হলেও

১. গণমাধ্যমকর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা হয়নি।

২. তথ্য অধিকার আইন ও অফিশিয়াল সিক্রেট আইনের পাশাপাশি অবস্থান নিশ্চিত করে সাংঘর্ষিক পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছে।

৩. পুলিশকে অবাধে ক্ষমতা প্রয়োগের সুযোগ দিয়ে স্বাধীন সাংবাদিকতাকে বাধাগ্রস্ত করার পথ সুগম করা হয়েছে।

তাঁরা বলেন, অতীত অভিজ্ঞতা থেকে এই আইনের অপপ্রয়োগের বিষয়টি নিয়েও তাঁরা উৎকণ্ঠিত । উল্লেখিত সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে তাঁরা

১. দ্রুত এই আইনের অসামঞ্জস্যসমূহ দূর করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

২.এই আইনের অপপ্রয়োগ করে যাতে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার ক্ষেত্রকে সংকুচিত করা না হয়, সে বিষয় নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন।

৩. গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Pin It on Pinterest

সংস্করণ